বিয়ের খাবার খেয়ে গণঅসুস্থতা, ৮০ জন দিরাই- সুনামগঞ্জ হাসপাতালে ! ১ জনের মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার
বিয়ে বাড়ী’র অনুষ্ঠানে ভেজাল খাবার খেয়ে একজন নিহত এবং বরযাত্রীসহ দুই পক্ষের ৮০ জন অসুস্থ হয়ে সুনামগঞ্জ সদর, দিরাই, সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ এবং সিলেট ডায়রিয়া হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। সিলেটে ভর্তি হওয়া ১২ জনের অবস্থা সংকটাপন্ন বলে জানিয়েছেন তাদের স্বজনরা। সুনামগঞ্জ শহরতলী সাদকপুর গ্রামে বুধবার রাতে বিয়ে বাড়িতে খেয়ে এরা অসুস্থ হন। শুক্রবার বিকাল ৩ টায় অসুস্থ জলি রানী দেব মারা যান। তিনি সুনামগঞ্জ শহরের ওয়েজখালীর বাসিন্দা। সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের চিকিৎসক ও বিয়ে বাড়িতে থাকা প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বুধবার রাতে জেলার দিরাই উপজেলার ডাইয়ারগাঁও থেকে বর মিহির তালুকদারের সঙ্গে শহরতলীর মোল্লাপাড়া ইউনিয়নের সাদকপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা মৃত প্রাণেশ তালুকদারের মেয়ের বিয়ে হয়। বরপক্ষ আসার পর গভীর রাতে খাওয়া দাওয়া শুরু হলে বর ও কনে পক্ষের ১০০ জনের মতো মানুষ দুই পর্বে খাওয়া সারেন। খাওয়ার পর পরই পেটে ব্যথা শুরু হয় সকলেরই। এরপর পাতলা পায়খানা শুরু হয়। পরে বৃহস্পতিবার সকালে ৪৪ জনকে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অন্যদিকে বরপক্ষের ৩৭ জনকে ভর্তি করা হয় দিরাই হাসপাতালে।
অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় বৃহস্পতিবার রাতে কন্যার মা ছন্দা রানী তালুকদার ও কাকাতো বোন বৃষ্টিকে সিলেট ওসমানি মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। শুক্রবার দুপুরে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতাল থেকে কনে পক্ষের জলি রানী দেব (২৬), তার দুই সন্তান শর্মী দেব, সানী দেব, ছোট বোন যুবুলী দেব এবং কাকাতো বোন রূপা দেবকে সিলেট ডায়রিয়া হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। জলি রানী দেব’এর আত্মীয় ওয়েজখালী’র বাসিন্দা বিষু দেব জানান, জলি রানী দেব তার দুই সন্তান এবং দুই বোনসহ সাদকপুরে বিয়েতে গিয়েছিলেন। বিয়ে বাড়িতে খাওয়ার পর পরই ডায়রিয়া দেখা দেয় তাদের। সকলকেই সুনামগঞ্জ সদর হাপাতালে ভর্তি করা হয়। শুক্রবার সকালে জলি রানী দেব’এর প্রেসার একবারেই কমে যায়। ডাক্তারের পরামর্শে তাকে সিলেট ডায়রিয়া হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। একই সঙ্গে তার দুই সন্তান শর্মী ও সানী এবং বোন যুবুলী এবং রূপাকেও সিলেট ডায়রিয়া হাসপাতালে নেওয়া হয়। শুক্রবার বিকালে একই গ্রামের সজিব রায়কেও সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। তিনি কনে পক্ষের নিমন্ত্রণে বিয়ের রাতে সাদকপুরে গিয়ে খেয়েছিলেন।
বিকাল ৩ টায় সিলেট ডায়রিয়া হাসপাতালে পৌঁছার সঙ্গে সঙ্গেই মারা যান জলি রানী দেব। তিনি সুনামগঞ্জ শহরতলির ওয়েজখালী’র মঞ্জু দেব’এর স্ত্রী।
এছাড়া দিরাই হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. সুমন রায় চৌধুরী জানান, সুনামগঞ্জ শহরতলির সাদকপুরে বিয়ের খাবার খেয়ে অসুস্থ বর পক্ষের ৩৭ জন দিরাই হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এরমধ্যে ৪ জনকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। এরা হলেন- রায়হান মিয়া, রিপন মিয়া, সুধেন দাস এবং ক্ষিরেন চন্দ্র দাস।
সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক রফিকুল ইসলাম জানান, সদর হাসপাতালে যারা চিকিৎসা নিচ্ছেন, তাদের অবস্থা উন্নতির দিকে। তিনি জানান, খাদ্যে সমস্যা থকায় তারা সকলেই অসুস্থ হয়েছেন।
সুনামগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. আশুতোষ দাস জানালেন, ‘খাদ্যে বিষক্রিয়ায় এমনটা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সুনামগঞ্জে পরীক্ষা করণের কোন ব্যবস্থা না থাকায় কোন খাবার খেয়ে কিভাবে এমন হলো, তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।’ বিকাল সোয়া ৫ টায় সিভিল সার্জন ডা. আশুতোষ দাস জানান, ‘দিরাই হাসপাতালে থাকা বরপক্ষের অসুস্থদের দেখতে এসেছি আমি। ইতিমধ্যে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়ন্ত্রণ কক্ষে বিষয়টি অবগত করা হয়েছে। রোগতত্ত্ব ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে জানিয়ে দেওয়া হবে এবং যথাযথ ব্যবস্থা নেবার জন্য অনুরোধ করা হবে।’

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৬০০ বার